ঢাকা, বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৮, ২০২১

সংবাদ শিরোনাম 

জাতীয় সংবাদ : ডেসটিনি অবলুপ্তি প্রশ্নে হাইকোর্ট আদেশ আরো ৪ সপ্তাহ স্থগিত   |   

পাবনায় বোরো ধানের বাম্পার ফলন

পাবনা, ২৭ মে, ২০১৮ (বাসস) : আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবং কৃষি বিভাগের বিভিন্ন সহযোগিতায় পাবনায় এবার বোরোর বাম্পার ফলন হয়েছে। পাবনার কৃষকেরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন ধান কাটা, মাড়াই, ঝাড়াই, শুকানো ও গুদাম জাতকরণের কাজে।
কৃষকদের সাশ্রয়ী সেচ পদ্ধতি অবলম্বন, উফশী জাতের এলাকা বৃদ্ধি, সুষম মাত্রায় সার ব্যবহার, জৈব সারের ব্যবহার নিশ্চিতকরণ, সঠিক বয়সের চারা রোপন, চারার বয়স বেশী হলে গোছায় চারার সংখ্যা বৃদ্ধি ও রোপণ দূরত্ব কমিয়ে দেয়া, স্বল্প জীবন কাল বিশিষ্ট নেরিকা মিউটেন্ট কুদরত, ব্রি-ধান ২৮, ব্রি ধান ৩৬, ব্রি ধান-৪৫,ব্রি ধান-৫৮, ব্রি ধান-৭৪ আবাদের এলাকা বৃদ্ধি, এলসিসি (লিফ কালার চার্ট) ব্যবহারের মাধ্যমে ইউরিয়া সার সাশ্রয়, গুটি ইউরিয়ার ব্যবহার বৃদ্ধি, রোগবালাই ও পোকা-মাকড় দমনের মাঠে পার্চিং ব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ এসবের মধ্যে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সহযোগিতা করেছে। ফলে জেলায় বাম্পার ফলন হয়েছে।
কৃষকেরা বোরো ধানের ফলন পাচ্ছে বিঘায় ২০-২২ মন হারে, কোন কোন ক্ষেত্রে বিঘায় ২৬-২৮ মন হারেও ফলন পেয়ে কৃষকেরা মহা খুশী। এবারের আবহাওয়া ছিল বোরো ধান উৎপাদনের পুরোপুরি অনুকূলে। উল্লেখযোগ্য প্রাকৃতিক দূর্যোগ পাবনায় হানা দেয়নি।
জেলার সাঁথিয়া উপজেলার পুটিগাড়া গ্রামের কৃষক লালন প্রাঃ এবং হানিফ মিয়া জানান, তারা কিছু কিছু জমির ধান কেটে বিঘায় ২০-২২ মন হারে ফলন পেয়েছেন এবং এ ফলন গত বারের চেয়ে অনেক বেশি। অন্যান্য কৃষকেরাও বলেন, এবার বোরো ধান আবাদ করে ফলন পেয়েছি গত বারের চেয়ে বেশি।
পাবনা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ বিভূতি ভূষণ সরকার জানিয়েছেন, পাবনায় লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫০ হাজার হেক্টর, সেখানে ৫৭ হাজার ৪শ ২০ হেক্টর জমিতে বোরোর আবাদ হয়েছে। তিনি এ আবাদে এবার ৩ লক্ষ ৮০ হাজার ৫শ মে.টন ধান উৎপাদন হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।